Current Bangladesh Time
বৃহস্পতিবার ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮ ৭:০৩ অপরাহ্ন
Barisal News
Latest News
প্রচ্ছদ » পর্যটন, বরিশাল, বরিশাল সদর, বাকেরগঞ্জ » তের জমিদারের প্রাচীন শহর বরিশালের কলসকাঠী
১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৭ শনিবার ১২:৪৬:২০ অপরাহ্ন
Print this E-mail this

তের জমিদারের প্রাচীন শহর বরিশালের কলসকাঠী
অনলাইন ডেস্ক


১৩ জমিদারের পূর্ণাঙ্গ প্রাচীন শহর বরিশালের কলসকাঠী

সংগ্রহীত

বরিশালের বাকেরগঞ্জ উপজেলা সদরে অবস্থিত কলসকাঠী জমিদার বাড়ি। উপজেলা সদরের সাহেবগঞ্জ খেয়া পার হয়ে মোটর সাইকেল, রিকশা বা ভ্যান যোগে প্রায় ৩ কিলোমিটার দূরে কলসকাঠী বাজার সংলগ্ন সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কাছেই জমিদার বাড়িটি অবস্থিত।

বলা হয় এখানে তের জমিদারের বাস ছিল। আসলে কলসকাঠীকে একটি পৃথক জমিদার বাড়ি না বলে, বলা যায় পূর্ণাঙ্গ একটি প্রাচীন শহর। অনেকটা সোনারগাঁওয়ের পানাম নগরের মতো। এখানে জমিদার বাড়িগুলো বিক্ষিপ্তভাবে ছড়িয়ে আছে।

জানাযায়, ১৭০০ সালের গোড়ার দিকে জমিদার জানকি বল্লভ রায় চৌধুরী কলসকাঠী স্থাপন করেন। আগে এর নাম ছিল কলুসকাঠী; কুলসকাঠী অপভ্রশ কলসকাঠী। জানকী বল্লভ রায় চৌধুরী ছিলেন গারড়িয়ার জমিদার রামাকান্তের পুত্র।

জানকী বল্লভ রায় চৌধুরীরা ছিলেন দুই ভাই। বড় ভাই রাম বল্লভ। জানকী বল্লভকে হত্যার চক্রান্ত করে রাম বল্লভ। জানকী বল্লভ তার বৌদির মাধ্যমে হাত্যার বিষয়টি জানতে পেরে রাতের আধারে গারুড়িয়া ত্যাগ করে মুর্শিদাবাদ চলে যান। সেখানে তিনি নাবাবের কাছে সমস্ত ঘটনা খুলে বলেন এবং নবাব তাকে অরংপুর পরগনার জমিদার হিসেবে নিয়োগ করেন।

জমিদারী পেয়ে তিনি কলসকাঠীতে এসে বসতি স্থাপন করে। কলসকাঠীর তের জমিদার মূলত জানকী বল্লভের পরবর্তী বংশধর। তাঁর বংশধররা প্রতাপশালী জমিদার ছিলেন। তাঁদের একজন বিশ্বেশ্বর রায় চৌধুরী এ বাড়িটি নির্মাণ করেন। জমিদার পরিবারের কিছু সদস্য পাকিস্তান আমলে ভারত চলে যান। জমিদার বাড়ির ধবংসস্তুপ কালের স্বাক্ষী হয়ে এখনও টিকে আছে।

পুরো এলাকাটার ভিতরেই একটা পুরনো পুরনো গন্ধ আছে। আসলে নদীর খুব কাছে হওয়াতে ওই সময়ে এখানে প্রচুর বণিকরা আসতো। যার ফলে এখানে রীতিমত একটি শহর গড়ে উঠেছিল। মূল জমিদার বাড়িতে প্রবেশপথেই পরে পুরনো কিছু ভাঙ্গা মন্দির এবং সংস্কারের অভাবে প্রায় ধ্বংসপ্রাপ্ত কিছু বাড়ি।

জমিদার বাড়ির দরজায় বড় একটি মন্দির আছে, আর আছে একটি বড় শিব মূর্তি। এখান থেকে একটি সরু রাস্তা চলে গেছে জমিদার বাড়ির দিকে। পাশেই রয়েছে শানবাঁধানো বড় একটি পুকুর।

জমিদার বাড়িটি বেশ বড়। ভিতর দিয়ে রাস্তা চলে গেছে অন্দরমহল এর দিকে। বাইরের অংশে ছোট ছোট খুপরি, যেখানে দেখলাম গোয়ালঘর করা হয়েছে। সিঁড়িপথের নিচে রয়েছে আরেকটি দরজা, যেটা দিয়ে বাড়ির মূল অংশে প্রবেশ করা যায়। বাড়িটি মুলত দোতালা। ছাদে কড়িকাঠের বর্গা।

প্রায় তিনশো বছরের বেশী সময় ধরে এই কাঠামো শক্ত ভিত হয়ে দাড়িয়ে আছে, কিন্তু এখন নিঃসন্দেহে সংস্কারের দাবি রাখে।  জমিদার বাড়ি থেকে বের হয়ে পাশের আরেকটি পুরনো বাড়িতে গেলাম। এই বাড়িটিও দোতালা।

তবে সংস্কারের অভাবে জরাজীর্ণ। সামনে একটি বড় উঠান এবং সাথে মন্দির। এই মন্দিরে দেখলাম শত বছরের পুরনো মূল্যবান কোষ্ঠীপাথরের মূর্তি। চুরির ভয়ে মন্দিরের ভিতরে দেবীর মূর্তিকে কাপড় দিয়ে ঢেকে রাখা হয়েছে। মন্দিরের সামনেই রয়েছে ছোট একটি বেদি।

পুজোর সময় এখানে প্রাণী বলি দেয়া হয়। প্রতি বছরের নভেম্বরে-ডিসেম্বর মাসে এখানে হয় ঐতিহ্যবাহী জগদ্বাত্রী পূজা। সর্ববৃহৎ দূর্গা পূজায় কলসকাঠীতে তেমন আনন্দ-উৎসব না হলেও এ পূজা ঘিরে কলসকাঠী পরিণত হয় লাখো মানুষের মিলনমেলায়। দূর দুরান্তের গ্রাম-গঞ্জ থেকে এই পূজায় অংশ নিতে মানুষজন ছুটে আসে।

এখান থেকে দেখা মিলবে একটি প্রাচীন লোহার সিন্দুক অযত্নভাবে পরে আছে জঞ্জালের সাথে। স্থানীয়দের অভিযোগ, কিছু প্রভাবশালী মানুষের কারণে এই বাড়িগুলো আজ ধ্বংসের পথে। অথচ খুব সহজেই সংরক্ষণ করলে কলসকাঠী হতে পারত একটি আকর্ষণীয় পর্যটন স্থান, যেখানে মানুষ স্বাদ পেত শতাধিক প্রাচীন এক পরিবেশের। সূত্র: ইন্টারনেট

 

 

সম্পাদনা: বরি/প্রেস/মপ

শেয়ার করতে ক্লিক করুন:

আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
(মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। amaderbarisal.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের মিল আছেই এমন হবার কোনো কারণ নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে amaderbarisal.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না।)
বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ
নির্বাচনে বরিশালে তিন স্তরের নিরাপত্তা
ভোটারদের দ্বারে দ্বারে বরিশালের প্রার্থীরা
আবার ক্ষমতায় এলে ২য় পদ্মা সেতু করা হবে: শেখ হাসিনা
২৪ ডিসেম্বর বরিশালে নামছে সেনা ও নৌবাহিনী
আ.লীগ জিতবে ২২০ আসনে: জরিপ
Recent: Mayor Hiron Barisal
Recent: Barisal B M College
Recent: Tender Terror
Kuakata News

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
আমাদের বরিশাল ২০০৬-২০১৪

প্রকাশক: মোয়াজ্জেম হোসেন চুন্নু, সম্পাদক: রাহাত খান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মোঃ জিয়াউল হক
৪৬১ আগরপুর রোড (নীচ তলা), বরিশাল-৮২০০।
ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, ই-মেইল: [email protected]