Current Bangladesh Time
বুধবার নভেম্বর ২২, ২০১৭ ৪:৪৬ অপরাহ্ন
Barisal News
Latest News
প্রচ্ছদ » ঝালকাঠি, ঝালকাঠি সদর » ঝালকাঠিতে মন্দিরের গাছ বিক্রিতে বাঁধা-হুমকি ইউপি সদস্যের
১৮ এপ্রিল ২০১৭ মঙ্গলবার ৬:০০:২৮ অপরাহ্ন
Print this E-mail this

ঝালকাঠিতে মন্দিরের গাছ বিক্রিতে বাঁধা-হুমকি ইউপি সদস্যের
ঝালকাঠি প্রতিবেদক


jhalakathi-news-map ঝালকাঠি সংবাদ মানচিত্রঝালকাঠি সদর উপজেলার কেওড়া ইউনিয়নের রনমতি গ্রামের একটি মন্দিরের গাছ বিক্রিতে বাঁধা দেয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে স্থানীয় ইউপি সসদ্যের বিরুদ্ধে। এমনকি দলবল নিয়ে ওই ইউপি সদস্য মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতিকে প্রাণনাশের হুমকী দিচ্ছে বলেও অভিযোগ রয়েছে।

জানাগেছে, সদর উপজেলার কেওড়া ইউনিয়নের রনমতি গ্রামের গলাইয়া খোলা সার্বজনীন শ্রীশ্রী কালী মন্দির ১৪ শতাংশ জমির উপরে প্রতিষ্ঠিত। প্রায় শত বছর ধরে ওই মন্দিরে কালি পূজা, শীতলা পূজাসহ বিভিন্ন ধরনে পূজা অনুষ্ঠিত হয়ে আসছে।

এছাড়াও প্রতি বছর পহেলা বৈশাখে মেলা ও পূজা অর্চনা হয় এখানে। গলাইয়া খোলা সার্বজনীন শ্রীশ্রী কালী মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি কমল কুমার দাসগুপ্তের ঠাকুরদাদু মৃত. ললিত কুমার দাসগুপ্ত প্রায় ৯০ বছর পূর্বে এই মন্দিরের নামে রনমতি মৌজার ৩৬৫ ও ৫২৪ খতিয়ানের ২৯২, ২৯৩, ২৯৪ দাগ থেকে ১৪ শতাংশ জমি দান করেন।

এই মন্দিরের জমির উপরে তিনটি বড় রেন্ট্রি গাছ রয়েছে যার মূল্য প্রায় দেড় লক্ষ টাকা। মন্দির পরিচালনা কমিটি এই তিনটি রেন্ট্রি গাছ বিক্রি করে মন্দিরের ভবন নির্মান করতে চাচ্ছেন।

কিন্তু স্থানীয় ৭ নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য কামালা মৃধা, আনসার সদস্য রাজ্জাক খান, আক্কাস খান ও লতিফ খান মিলে দলবল নিয়ে এই গাছ বিক্রিতে বাঁধা দিচ্ছেন। তাদের দাবি এই তিনটি গাছের মধ্যে দুইটি গাছ তারা রোপন করেছেন।

তবে স্থানীয়দের সাথে আলাপ করে জানাগেছে, মন্দিরের জায়গায় এই তিনটি রেন্ট্রি গাছ মন্দিরের সেবাইতরাই লাগিয়েছেন। গলাইয়া খোলা সার্বজনীন শ্রীশ্রী কালী মন্দির পরিচালনা কমিটির সভাপতি কমল কুমার দাসগুপ্ত বলেন, ‘ মন্দিরের এই তিনটি রেন্ট্রি গাছ বিক্রির টাকা দিয়ে আমরা মন্দিরের জন্য ভবন নির্মান করতে চাই। কিন্তুু ইউপি সদস্য কামালা মৃধা, আনসার সদস্য রাজ্জাক খান, আক্কাস খান ও লতিফ খানরা মিলে আমাদের গাছ বিক্রি করতে দিচ্ছেন না। তাদের অব্যাহত হুমকীতে আমি বর্তমানে নিরাপত্তাহীনতায় রয়েছি। এব্যাপারে প্রশাসনে সহযোগীতা কামনা করছি।

এব্যাপারে ইউপি সদস্য কামালা মৃধা বলেন, রাজ্জাক নামের এক ব্যক্তি গাছের মালিকানা দাবি করে ইউনিয়ন পরিষদে অভিযোগ করায় কোন পক্ষকেই গাছগুলো বিক্রি করার অনুমতি দেয়া হচ্ছেনা। মিমাংশা হলে যে পক্ষ পাবে সেই পক্ষই গাছগুলো বিক্রি করবে।

সম্পাদনা: বরি/প্রেস/মপ

শেয়ার করতে ক্লিক করুন:

আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
(মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। amaderbarisal.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের মিল আছেই এমন হবার কোনো কারণ নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে amaderbarisal.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না।)
বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ
বাবা ভেবেছিলেন ছেলে আর ফিরবে না
শেবাচিমে রোগীর স্বজন-চিকিৎসকদের মধ্যে মারামারি
বেতাগীতে লাভ জনক কৃষি পণ্য সুপারি
মালয়েশিয়ায় সংগ্রামী জীবন ঝালকাঠির নাসিরের
পটুয়াখালীর পায়রা বন্দরে চাকরির সুযোগ
Recent: Mayor Hiron Barisal
Recent: Barisal B M College
Recent: Tender Terror
Kuakata News

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
আমাদের বরিশাল ২০০৬-২০১৪

প্রকাশক: মোয়াজ্জেম হোসেন চুন্নু, সম্পাদক: রাহাত খান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মোঃ জিয়াউল হক
৪৬১ আগরপুর রোড (নীচ তলা), বরিশাল-৮২০০।
ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, ই-মেইল: [email protected]