Current Bangladesh Time
বৃহস্পতিবার আগস্ট ১৭, ২০১৭ ৭:৫৯ পূর্বাহ্ন
Barisal News
Latest News
প্রচ্ছদ » বরিশাল, বরিশাল সদর, সংবাদ শিরোনাম » হাসপাতালের মেঝে-বারান্দায় রোগীদের গড়াগড়ি
১৮ জুন ২০১৭ রবিবার ১:৫৪:২৩ অপরাহ্ন
Print this E-mail this

হাসপাতালের মেঝে-বারান্দায় রোগীদের গড়াগড়ি
নিজস্ব প্রতিবেদক


শেবাচিম পরিচালক ডাঃ সেলিম ওএসডিঅতিরিক্ত রোগীর চাপে নিজেই ধুঁকছে বরিশাল শের ই বাংলা মেডিকেল কলেজ (শেবাচিম) হাসপাতাল। ৫০০ শয্যার এই হাসপাতাল ১০০০ শয্যায় উন্নীত হয়েছে শুধু কাগজে। সেবা রয়েছে সেই ৫০০ শয্যার।

এই শয্যার বিপরীতে প্রতিদিন গড়ে রোগী থাকছেন তিনগুন অর্থাৎ দেড় হাজারের বেশি। ফলে অতিরিক্ত ওই রোগীদের ঠাঁই হয়েছে মেঝেতে আর বারান্দায়।

চিকিৎসকেরাও বলছেন, সেবা দুরের কথা, মেঝের ভিড় সামাল দিতেই হিমসিম খাচ্ছেন তারা।

বরগুনার গৃহবধু রাশিদা বেগম শুক্রবার থেকে ভর্তি আছেন এ হাসপাতালে। তবে হাসপাতালের বেড পাননি তিনি। গ্রামের বাড়ি থেকে বিছানা-বালিশ এনে তিনি পড়ে রয়েছেন লেবার ওয়ার্ডের বারান্দার মেঝেতে। এমনকি সদ্য ভুমিষ্ঠ শিশুও থাকছেন মায়ের সঙ্গে মেঝেতে।

রাশিদা বেগম জানান, হাসপাতালের পরিচ্ছন্নকর্মীরা আসলে স্যালাইনের বোতল হাতে নিয়ে বিছানা-বালিশ গুটিয়ে দাড়িয়ে থাকতে হচ্ছে তাকে। আর রাশিদার মা তার সন্তানকে নিয়ে দাড়িয়ে থাকেন।

শুধু এক রাশিদাই নয়, সেখানে এমন শত শত রাশিদারা এভাবেই এ হাসপাতাল থেকে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে। প্রচন্ড জ্বর আর গায়ে ব্যথা নিয়ে শুক্রবার সকালে হাসপাতালের মেডিসিন-৩ ওয়ার্ডে ভর্তি হয়েছে ১৩ বছরের কিশোরী সাথী আক্তার। হাসপাতালে বেড না জোটায় তারও ঠাঁই হয়েছে মেঝেতে।

নেই ফ্যানের ব্যবস্থা। তার পরে বৃস্টি হলে বারান্দায় বৃস্টির পানি ঢুকে ভিঝতে হচ্ছে তাকেসহ পাশ্ববর্তী রোগীদের।

সাথী আক্তার জানান, তিনি বাড়ি যেতে চান। ভিজে বিছানায় শুয়ে থাকতে থাকতে আরও শরীর খারাপ করছে।

গতকাল শনিবার বেলা ১২ টায় হাসপাতালের মহিলা মেডিসিন বিভাগে(চতুর্থ তলায়) গিয়ে দেখা গেছে, পুরো ওয়ার্ড কানায় কানায় পূর্ণ। তিল ঠাই নেই ওই ওয়ার্ডের মেঝে, বারান্দা ও চতুর্থ তলার মেঝেতে। স্থান সংকুলান না হওয়ায় রোগিদের একেবারে উন্মুক্ত স্থানে রেখে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে।

কারণ ৩২ বেডের ওই ওয়ার্ডটিতে রোগি চিকিৎসাধীন রয়েছে দেড়শতাধিক। হাসপাতালের লেবার ও গাইনী বিভাগেও একই চিত্র দেখা যায়। লেবার ওয়ার্ডে অনুমোদিত ৬০টি বেডের বিপরীতে রোগী রয়েছে দুই শতাধিক।

অপরদিকে গাইনী ওয়ার্ডেও ৬০টি অনুমোদিত বেডের বিপরীতে প্রায় সমসংখ্যক রোগী রয়েছে। ওই দুই ওয়ার্ডের বেড পূর্ণ হবার পর, মেঝে, বারান্দা ও এর বাইরের মেঝেও রোগীতে পরিপূর্ণ। তিল ঠাই নেই ওয়ার্ড, বারান্দা ও বাইরের মেঝেতে। এরপরও নতুন রোগী ভর্তি হয়ে আসছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, ৫০০ শয্যার নতুন ভবন নির্মাণ সম্পূর্ণ হয়নি গত ৯ বছরেও। আইনি জটিলতাসহ নানা ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের অনিয়ম-দুর্নীতিতে ২৭ মাসের এ প্রকল্প দীর্ঘসূত্রতায় পড়ে আছে।

ফলে জায়গা ও জনবল সংকটে হাসপাতালের কার্যক্রম চিকিৎসাসেবা ব্যহত হচ্ছে মারাত্মকভাবে। কাঙ্খিত সেবা না পাওয়াসহ দুর্ভোগে পড়ছেন রোগীরা।

জানা গেছে, ১৯৬৮ সালে বরিশাল শের-ই বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় শিক্ষা কার্যক্রম শুরু করার পর থেকে কলেজের সামনের হাসপাতাল ভবনে পুরোদমে শুরু হয় চিকিৎসা সেবার কার্যক্রম। ২০১৩ সালে হাসপাতালটিকে ৫০০ শয্যা থেকে ১ হাজার শয্যায় উন্নীত করা হয়। তবে তা কাগজে কলমে। নতুন একটি ভবনের কাজ শুরু করার হয় ২০০৮ সালে।

নানা জটিলতায় কাজ বন্ধ হয়ে যায়। ২০১৪ সালে নতুন শিডিউল করে অবশিষ্ট কাজ সম্পন্নের ব্যয় ধরা হয় ১৯ কোটি টাকা। কিন্তু ফের নানা জটিলতায় ৫৯ শতাংশ কাজ সম্পন্ন হওয়া ভবনটি পড়ে রয়েছে। ফলে এ ভবন থেকে সেবা পাচ্ছে না রোগীরা।

গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. ওসমান গনী জানান, নানা জটিলতা কাটিয়ে নতুন করে এস্টিমেট করে শীঘ্রই টেন্ডার আহবান করা হবে। ফলে সামনের অর্থবছরের (২০১৭-১৮) মধ্যে কাজ শুরু হয়ে ১ বছর মেয়াদকালের মধ্যেই ভবনের বাকি কাজ শেষ করা হবে।

তিনি জানান, এর বাইরেও পুরো ভবনকে স্বয়ংসম্পূর্ণ ও পূর্ণাঙ্গ হাসপাতাল হিসেবে চালু করতে ১৬ কোটি টাকার অনুমোদন পাওয়া গেছে। এর কাজ নতুন ভবন নির্মাণ শেষে শুরু হবে বলে তিনি জানান।

এব্যাপারে হাসপাতালের পরিচালক অধ্যাপক ডা. এসএম সিরাজুল ইসলাম বলেন, অতিরিক্ত ৫০০ রোগীর জায়গা দিতে হয় ওয়ার্ডের মেঝে, বারান্দা ও বাইরের মেঝেতে। মেডিসিন, লেবার ও গাইনী বিভাগসহ ৪/৫টি বিভাগে রোগীর চাপ এতো বেশী থাকে যা সামাল দিতে হিমশিম খেতে হয়। তবে নির্মানাধীন হাসপাতালের ৫ তলা অপর ভবনটির পূর্বের ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে বাতিল করা হয়েছে। নতুন করে দরপত্র আহবানের আবেদন করেরছি। মন্ত্রনালয় অনুমোদন পেলেই ও ওই ভবন নির্মান হলে রোগীদের আর মেঝেতে থাকতে হবে না।

সম্পাদনা: বরি/প্রেস/মপ

শেয়ার করতে ক্লিক করুন:

আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
(মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। amaderbarisal.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের মিল আছেই এমন হবার কোনো কারণ নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে amaderbarisal.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না।)
বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ
বঙ্গবন্ধু-ই এক ও অদ্বিতীয় স্বাধীনতা সংগ্রামের নেতৃত্ব
শাহানারা আব্দুল্লাহ’র বর্ণনায় ৭৫’র ১৫ আগস্ট
শেখ মুজিবকে সপরিবারে হত্যার পর কি ঘটেছিল?
বিনম্র শ্রদ্ধায় বরিশালে বঙ্গবন্ধুকে স্মরণ
মঠবাড়িয়ায় বিএনপি কার্যালয়ে তালা
Recent: Mayor Hiron Barisal
Recent: Barisal B M College
Recent: Tender Terror
Kuakata News

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
আমাদের বরিশাল ২০০৬-২০১৪

প্রকাশক: মোয়াজ্জেম হোসেন চুন্নু, সম্পাদক: রাহাত খান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মোঃ জিয়াউল হক
৪৬১ আগরপুর রোড (নীচ তলা), বরিশাল-৮২০০।
ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, ই-মেইল: [email protected]