Current Bangladesh Time
সোমবার ডিসেম্বর ১১, ২০১৭ ৫:১৬ অপরাহ্ন
Barisal News
Latest News
প্রচ্ছদ » পটুয়াখালী, পটুয়াখালী সদর, বাউফল, সংবাদ শিরোনাম » ঘুষ না দিলে মিলে না মাতৃত্বকালীন ভাতা!
১২ অক্টোবর ২০১৭ বৃহস্পতিবার ৪:৫০:২৪ অপরাহ্ন
Print this E-mail this

ঘুষ না দিলে মিলে না মাতৃত্বকালীন ভাতা!
কৃষ্ণ কর্মকার.বাউফল


patuakhali-news-map পটুয়াখালী সংবাদ মানচিত্রপটুয়াখালীর বাউফল উপজেলায় ঘুষ না দিলে মিলে না নারীদের মাতৃত্বকালীন ভাতা। নাম অর্ন্তভূক্তী থেকে টাকা উত্তোলন পর্যন্ত সব ক্ষেত্রেই অভিযোগ রয়েছে ঘুষ বাণিজ্যর।

অভিযোগ, এর সাথে জড়িত ইউনিয়ন পরিষদের গুটি কয়েক সংরক্ষিত নারী সদস্য, পুরুষ সদস্য, সচিব, চৌকিদার, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ের অফিস সহকারী, ভাতাপ্রদাণকারী ব্যাংকের সংশ্লিষ্টরা।

নারীদের অভিযোগ, এদের সকলকে ঘুষ দিতে গিয়ে একজন সুবিধাভোগী মা হাতে পাচ্ছেন ভাতার তিনের এক অংশ।

সংশ্লিষ্ট সুত্রে জানা গেছে, সরকার মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের অধীনে প্রতি উপজেলায় অসহায় দুঃস্থ গর্ভবতী নারীর ও শিশুর সুস্থ্য ভাবে লালন পালনের জন্য প্রতি মাসে ৫শ করে টাকা ভাতা নির্ধারন করেন। যা টানা দুই বছর পর্যন্ত ভাতা গর্ভবতী নারীরা পাবেন।

এ বছর বাউফল উপজেলার ১৫টি ইউনিয়নে মোট ১১৮৫ জন অসহায় দুঃস্থ গর্ভবতী নারীর নাম তালিকা ভুক্ত করা হয়। অভিযোগ রয়েছে এই তালিকা তৈরীতে রয়েছে ঘুষ বাণিজ্য।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এমন কয়েক নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে সরেজমিন অনুসন্ধান করে জানা গেছে, কেশবপুর ইউনিয়নের ৪,৫ও ৬নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত নারী সদস্য এলিনা আক্তার ওই ইউপির ভাতাভোগী নারীদের কাছ থেকে তালিকায় নাম দেওয়ার জন্য নিয়েছেন জন প্রতি ১হাজার টাকা।

একই অভিযোগ রয়েছে ওই ইউপির ১,২ ও ৩ সংরক্ষিত নারী সদস্য মোসা. লিপি আক্তার বিরুদ্ধে। তবে হাজার টাকা নেওয়ার অভিযোগ দুজনই অস্বীকার করেছেন। তবে লিপি নামের ইউপি সদস্য যাতায়াত ভাড়া বাবাদ একশ থেকে দুইশত করে টাকা নিয়েছেন বলে স্বীকার করেছেন।

এ বিষয়ে কেশবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহিউদ্দিন লাভলু বলেন, এমন কোনো অনিয়মের বিষয়ে আমার জানা নেই। তবে যদি অনিয়ম হয়ে থাকে তাহলে এর সাথে সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারীরা জড়িত থাকতে পারে।

মদনপুরা ইউনিয়নের ভাতাভোগীরাও একই ধরনের অভিযোগ করেছেন ওই ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য মো. আলতাফ হোসেন (২নং ওয়ার্ড), সংরক্ষিত ১,২ ও ৩নং ওয়ার্ডের নারী ইউপি সদস্য মোসা রিনা বেগমের বিরুদ্ধে। তারাও ভাতা ভোগীদের কাছ থেকে একাউন্ট খোলার কথা বলে জনপ্রতি নিয়েছেন ৫শ টাকা।

এরপর ভাতা পাওয়ার পর প্রত্যেক ভাতাভোগীর কাছ থেকে নিয়েছেন ১হাজার টাকা। ওই ইউনিয়ন পরিষদের সচিব এনামুল হক মামুন ওরফে ফজলু স্লিপ দিয়ে ওই ইউনিয়নের প্রত্যেক ভাতাভোগীদের কাছ নিয়েছেন দেড়শ টাকা। তবে ওই ইউপি সচিব এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে ইউপি সদস্য মো. আলতাফ হোসেনের মুঠো ফোনে জানতে চাইলে তিনি বলেন, আমি কোনো টাকা নেই নাই। টাকা নিয়েছে সংরক্ষিত নারী ইউপি সদস্য রিনা আর চৌকিদার। ৩৫বছরের ওপরে যাদের বয়স তাদেরকেও নিয়ম উপেক্ষা করে ভাতা দেওয়া হয়েছে। অথচ প্রকৃত দুস্থ গর্ভবতী নারীরা এই ভাতা পায় নি।

এ বিষয়ে সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য রিনার বক্তব্য নেওয়ার জন্য তার মুঠো ফোনে একাধিকবার ফের দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

এ বিষয়ে মদনপুরা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মো. গোলাম মস্তফা জানান, এ বিষয়ে কিছু অনিয়ম হচ্ছে আমিও জানি। উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার অফিস সহকারী মো. কামরুল অফিস খরচের জন্য জনপ্রতি ১শ করে টাকা নেয় এমনটা আমি শুনেছি।

অধিকাংশ ইউনিয়নেই ভাতাভোগীদের ভাতার টাকার ওপর এভাবেই ভাগ বসিয়ে প্রাপ্ত ভাতার টাকার একটি বড় অংশই হাতিয়ে নিচ্ছে সংশ্লিষ্টরা।

সোনালী ব্যাংক বাউফল শাখায় ভাতা নিতে আসা ভাতাভোগীরা জানান, ব্যাংক কর্মকর্তা মো. সিদ্দিক চালান ফরম দেওয়ার কথা বলে প্রত্যেক ভাতাভোগীর কাছ থেকে আদায় করছেন ২০ টাকা করে। আর তার সাথে দুইটি লটারির টিকেটও ধরিয়ে দিচ্ছেন জোর পূর্বক।

এ বিষয়ে জানতে সোনালী ব্যাংক বাউফল শাখার ম্যানেজার মো. মনিরুল ইসলাম টাকা নেওয়া বিষয়টির সত্যতা স্বিকার করে কলেন, আমি আপনাদের কাছ থেকে জেনে প্রত্যেক নারীর টাকা ফেরত দিয়েছে। এবং সিদ্দিককে মৌখিক শর্তক করে দেওয়া হয়েছে।

উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তার কার্যালয়ে গিয়ে জানা যায় বদলি জনিত কারণে নতুন কর্মকর্তা এখনো যোগদান করেন নি। পরে অফিস সহকারী কামরুলের কাছে ভাতাভোগীদেও কাছ থেকে তার টাকা নেওয়ার বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি এ অভিযোগ অস্বীকার করেন।

এ বিষয়ে উপজেলা নির্বাহি কর্মকর্তা আবদুল্লাহ আল মাহমুদ জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, নতুন কর্মকর্তা এখনো যোগদান করেন নি। উনি আসলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।

সম্পাদনা: বরি/প্রেস/মপ

শেয়ার করতে ক্লিক করুন:

আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
(মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। amaderbarisal.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের মিল আছেই এমন হবার কোনো কারণ নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে amaderbarisal.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না।)
বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ
আসামির মৃত্যু: পুলিশ-চিকিৎসকের দ্বিমুখী বক্তব্য
অকাল বৃষ্টিতে নাকাল বরিশালবাসী
ভোলায় কূপ খনন শুরু: গ্যাস মিললেই সরবরাহ দক্ষিণাঞ্চলে
বরিশালের ৬ জেলায় একটি করে হাইটেক পার্ক
কুয়াকাটার সমুদ্রের মাঝে জেগেছে নতুন চর
Recent: Mayor Hiron Barisal
Recent: Barisal B M College
Recent: Tender Terror
Kuakata News

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
আমাদের বরিশাল ২০০৬-২০১৪

প্রকাশক: মোয়াজ্জেম হোসেন চুন্নু, সম্পাদক: রাহাত খান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মোঃ জিয়াউল হক
৪৬১ আগরপুর রোড (নীচ তলা), বরিশাল-৮২০০।
ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, ই-মেইল: [email protected]