Current Bangladesh Time
বুধবার মার্চ ২০, ২০১৯ ৩:২৮ অপরাহ্ন
Barisal News
Latest News
প্রচ্ছদ » আমতলী, তালতলী, বরগুনা, বরগুনা সদর, সংবাদ শিরোনাম » বরগুনায় ৩০৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ ঘিরে ষড়যন্ত্র!
১১ ডিসেম্বর ২০১৮ মঙ্গলবার ৫:৩১:০০ অপরাহ্ন
Print this E-mail this

বরগুনায় ৩০৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ ঘিরে ষড়যন্ত্র!
নিউজ ডেস্ক


বরগুনায় ৩০৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ কেন্দ্র নির্মাণ ঘিরে ষড়যন্ত্র!দেশের দক্ষিণাঞ্চলের বিদ্যুৎ সংকট মোকাবেলায় নির্মিত হচ্ছে ৩০৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎকেন্দ্র। মোট সাড়ে চার হাজার কোটি টাকা ব্যয়ে চীনের সঙ্গে যৌথভাবে নির্মিত হচ্ছে এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র। কিন্তু কতিপয় স্বার্থান্বেষী মহল প্রকল্পটি বাস্তবায়নে বাধার সৃষ্টি করছে।

যদিও তারা সরকার কিংবা পরিবেশ সংক্রান্ত কোনো সংগঠনের কেউ নয়।বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নির্মাণের জন্য উদ্যোক্তা প্রতিষ্ঠান আইসোটেক গ্রুপের সহযোগী প্রতিষ্ঠান আইসোটেক ইলেকট্রিফিকেশন কোম্পানির সঙ্গে চলতি বছরের ১২ এপ্রিল বাংলাদেশ বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ডের (পিডিবি) একটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়।

বর্তমানে এ প্রকল্পের ভূমি উন্নয়নের কাজ শেষ পর্যায়ে। বরগুনার তালতলী উপজেলার ছোট নিশানবাড়িয়া গ্রামেই নির্মিত হচ্ছে এ বিদ্যুৎ কেন্দ্র। চীনের পাওয়ার চায়না রিসোর্স লিমিটেডের সঙ্গে যৌথভাবে কয়লাভিত্তিক এ বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মাণ করছে আইসোটেক।

প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকারভিত্তিক এ প্রকল্প থেকে ২০২২ সাল নাগাদ খুব অল্প মূল্যে জাতীয় গ্রিডে যুক্ত হবে এ বিদ্যুৎ। সরকারের সঙ্গে চুক্তি অনুযায়ী ২৫ বছর এ কেন্দ্র থেকে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে।জানা গেছে, পাওয়ার চায়না রিসোর্স লিমিটেড কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদনে বিশ্বখ্যাত প্রতিষ্ঠান।

তারা অস্ট্রেলিয়া, পাকিস্তান, ব্রাজিল, আর্জেন্টিনা, ইন্দোনেশিয়া, ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়াসহ বিশ্বের বেশ কিছু দেশে দক্ষতার সঙ্গে কয়লা দিয়ে ৩০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন করছে।সরেজমিন অনুসন্ধানে দেখা যায়, নিশানবাড়ীয়া শুভসন্ধ্যা সমুদ্র সৈকতের পাশ্ববর্তী পায়রা নদীর মোহনা থেকে থেকে বালু ড্রেজিং করে প্রকল্পের জমি ভরাটের কাজ চলছে।

এদিকে, প্রকল্পের কাজ খুব দ্রুত এগিয়ে চললেও একটি মহল শুরু থেকেই নানাভাবে বাধার সৃষ্টি করছে। শুরুতে ওই চক্রটি পানি উন্নয়ন বোর্ডের (পাউবো) জায়গা লিজ সংক্রান্ত বিষয়ে স্থানীয়দের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি করেছিল। পরবর্র্তীতে পাউবোর জায়গায় বসবাসকারীদের মধ্যে সে বিভ্রান্তির অবসান হয়।বর্তমানে ওই মহলটি শুভসন্ধ্যা সৈকত নিয়ে বিভ্রান্তির সৃষ্টি করছে।

প্রকল্প বাস্তবায়ন সংক্রান্ত সকল প্রকার সরকারি-বেসরকারী অনুমোদনের পরও তারা জনমনে উৎকণ্ঠা ছড়াচ্ছে। তারা প্রচার করছে, ড্রেজিংয়ের কারণে শুভসন্ধ্যা সৈকত ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে যাবে।যদিও স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে কথা বলে এ বিষয়ে কোনো অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

আজ মঙ্গলবার সরেজমিনে শুভসন্ধ্যা সৈকত পরিদর্শনে গিয়ে স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে ভিন্ন ভিন্ন তথ্য পাওয়া যায়।

উপস্থিত অনেকের অভিযোগ, পাশর্^বর্তী এলাকা থেকে বালু উত্তোলন করার কারণে সৈকতের কিছু অংশ তলিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু ঘটনার সত্যতা জানতে স্থানীয় অনেকের সঙ্গে কথা হয় এ প্রতিবেদকের।

সোহাগ গাজী নামের এক স্থানীয় বাসিন্দা জানান, দীর্ঘ ১৫ বছর ধরে একটু একটু করে ভাঙছে সৈকত এলাকা। তবে তা খুবই সামান্য। দীর্ঘ সময় অবস্থান করলে তা চোখে পড়ে। এছাড়া ওই সৈকতটি পায়রা নদীর মোহনায় অবস্থিত হওয়ায় সেখানে সাগরের ঢেউ আসেনা। ফলে সাগর থেকে বালুও উঠে আসেনা।

সৈকতের প্রায় তিন কিলোমিটার পরিদর্শন করে দেখা যায়, সব জায়গায় একই অবস্থা। সৈকতের দোকাদাররাও দীর্ঘ সময় ধরে ভাঙনের কথা জানান।স্থানীয়দের মাঝে যারা এসব বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছেন তাদের পুরোপুরি চিহ্নিত করা যায়নি। অভিযোগ উত্থাপনকারীদের কেউই এর পেছনে ইন্ধনদাতার নাম প্রকাশ করতে চাননি। প্রকল্প থেকে অনৈতিক সুবিধা আদায় করার জন্য স্থানীয় কিছু প্রভাবশালী মহল জনমনে বিভ্রান্তি ছড়াচ্ছে বলে অনেকেই ইঙ্গিত করেছেন।

সৈকত ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার বিষয়ে আইসোটেক গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মো. মঈনুল আলম বলেন, “জেলা প্রশাসন, পানি উন্নয়ন বোর্ড, দেশি-বিদেশি বিশেষজ্ঞসহ সংশ্লিষ্ট সকলের সাথে পরামর্শ করে শুভসন্ধ্যা সৈকতের পার্শ্ববর্তী পায়রা নদীর মোহনা থেকে বালি উত্তোলন করা হচ্ছে। বিশেষজ্ঞরা মতামত দিয়েছেন, সৈকতের এক কিলোমিটারের মধ্যে বালি উত্তোলন করা যাবে না। আমরা নিরাপত্তার স্বার্থে ন্যূনতম এক দশমিক ২ কিলোমিটার দূরবর্তী এলাকা থেকে বালু উত্তোলন করছি। ফলে শুভসন্ধ্যা সি বিচের কোনো ক্ষতি হবার আশংকা নাই। তারপরও আমরা বিষয়টি নজরদারির মধ্যে রেখেছি। যাতে করে শুভসন্ধ্যা বিচ এলাকার কোনো প্রকার ক্ষতি না হয়। নিয়মের ব্যত্যয় ঘটানোর আমাদের কোনো সুযোগ নেই।”

তিনি আরো বলেন, ‘‘বৈদেশিক অর্থায়নে নির্মিত হওয়ায় এ প্রকল্পে নিয়মনীতির ব্যত্যয় ঘটানোর সুযোগ নেই।’’ বিদ্যুৎকেন্দ্রটি নির্মিত হলে এলাকার উন্নয়নসহ ব্যাপক কর্মসংস্থানের সৃষ্টি হবে বলেÑ এ ব্যাপারে সেখানকার সচেতন মহল দ্বিমত পোষণ করছেন না।

তালতলী সরকারী কলেজের অধ্যক্ষ এম এ জব্বার জানান, জননেত্রী শেখ হাসিনা এই অঞ্চলের উন্নয়নের বিষয়ে যে সকল প্রকল্প হাতে নিয়েছেন, তার মধ্যে তাপ বিদ্যুৎ কেন্দ্র অন্যতম। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে তালতলীসহ উপকূলীয় এলাকা উন্নয়নের শহরে পরিণত হবে। জীবনযাত্রার মান উন্নত হবে।

বরগুনা পানি উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মশিউর রহমান বলেন, বিদ্যুত কেন্দ্র এলাকায় পানি উন্নয়ন বোর্ডের যে জমি আছে কিছু আইসোটেক ইলেট্রিফিকেশন কোম্পানি লিমিটেড কে লিজ দেয়া হয়েছে আর প্রকল্পের মধ্যে যে জমি পরেছে তাও লিজ দেয়ার প্রক্রিয়া চলছে। প্রকল্প এলাকায় যারা অবৈধভাবে পাউবোর জমি দখল করে আছে তাদেরকে জমি ছেড়ে দেয়ার জন্য অনুরোধ করা হয়েছে।

বরগুনা জেলা প্রশাসক কবির মাহমুদ বলেন, দেশের দক্ষিণাঞ্চলের সাগরতীরবর্তী এলাকায় এ রকম একটি বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মিত হচ্ছে। এটি উৎপাদনে গেলে দেশের বিদ্যুত সংকট দূর করতে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। এই বিদ্যুৎ কেন্দ্রটি নির্মাণে তিনি সকলের সহযোগিতা করা উচিৎ বলে জানান।

তালতলী উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান খলিলুর রহমান বলেন, এটি বাস্তবায়ন হলে এলাকার ব্যাপক উন্নয়ন হবে। যেহেতু বিশেষজ্ঞ ও প্রশাসন শুভসন্ধ্যা সৈকতের পাশ^বর্তী এলাকা থেকে বালু উত্তোলনের পক্ষে মতামত দিয়েছে সেহেতু আমাদের দ্বিমত পোষণ করার কোনো কারণ নেই।

বরগুনা- ১ আসনের সাংসদ এ্যাডঃ ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভু বলেন, তালতলীতে আইসোটে গ্রুপ ৩০৭ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র নির্মাণ করছে। এটি দক্ষিণাঞ্চলসহ দেশের উন্নয়নে ব্যাপক ভূমিকা রাখবে। এটি বাস্তবায়িত হলে এ অঞ্চলে আর্থ-সামাজিক অবস্থার ইতিবাচক পরিবর্তন ঘটবে। বিদ্যুত কেন্দ্র নির্মাণ বর্তমান সরকারের উন্নয়নের একটি অংশ। কেন্দ্রটি বাস্তবায়নে প্রশসানের পক্ষ থেকে সকল প্রকার সহযোগিতা করা হচ্ছে। আমি মনে করি দলমত নির্বিশেষে সকলের এ প্রকল্প বাস্তবায়নে সহযোগিতা করা উচিৎ।‘‘পাউবো’র জমি আইসোটেককে লিজ দেওয়া হলেও সেখানে বসবাসকারীদের হতাশার কোনো কারণ নেই। তাদের পুরোপুরি পুনবার্সনের ব্যবস্থা করা হবে।’’Ñ বলেন আইসোটেক গ্রুপের মিডিয়া এডভাইজার ফিরোজ চৌধুরী।

সম্পাদনা: বরি/প্রেস/মপ

শেয়ার করতে ক্লিক করুন:

আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
(মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। amaderbarisal.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের মিল আছেই এমন হবার কোনো কারণ নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে amaderbarisal.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না।)
দক্ষিণের স্বপ্নের পদ্মাসেতুর ১৩৫০ মিটার দৃশ্যমান হচ্ছে কাল
নলছিটিতে বৃদ্ধের লাশ উদ্ধার
দানবাক্স পাহারায় সাপ!
দক্ষিণের স্বপ্নের পদ্মা সেতুর রোডওয়ে স্ল্যাব বসানো শুরু
তজুমদ্দিনে দফায় দফায় হামলা-ভাঙচুর, আটক ৯
Recent: Mayor Hiron Barisal
Recent: Barisal B M College
Recent: Tender Terror
Kuakata News

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
আমাদের বরিশাল ২০০৬-২০১৪

প্রকাশক ও নির্বাহী সম্পাদক: মোয়াজ্জেম হোসেন চুন্নু, সম্পাদক: রাহাত খান
৪৬১ আগরপুর রোড (নীচ তলা), বরিশাল-৮২০০।
ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, ই-মেইল: [email protected]