AmaderBarisal.com Logo

কলাপাড়ায় মদিনা গ্রুপের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ


আমাদেরবরিশাল.কম

২৪ জুলাই ২০১৯ বুধবার ৬:১৮:৩৯ অপরাহ্ন

কলাপাড়ায় মদিনা গ্রুপের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিবেদক, কলাপাড়া॥ পটুয়াখালীর কলাপাড়ার পায়রা সমুদ্র বন্দরের শেখ হাসিনা চার লেন সড়কের পাশের ১৪ জন জমির মালিকের প্রায় পাঁচ একর জমিতে মদিনা গ্রুপের মদিনা ফিলিং স্টেশন নির্মানের জন্য বেকু (স্কেবেটার মেশিন) দিয়ে মাটি কাটা শুরু কারর অভিযোগে সাংবাদিক সম্মেলনে করেছে জমির মালিকরা।

বুধবার দুপুরে কলাপাড়া প্রেসক্লাবে সাংবাদিক সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ভুক্তভোগী জমির মালিক সৈয়দ আহসান উদ্দিন পাভেল। এসময় অন্যান্য জমির মালিকের পক্ষে উপস্থিত ছিলেন মো. ইউসুফ মিনা, আনোয়ার মিনা।

লিখিত বক্তব্যে সৈয়দ আহসান উদ্দিন পাভেল জানায়, আমরা প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার দৃষ্টি আর্ষণ কওে বলতে চাই, প্রধান মন্ত্রী আপনি এই অবহেলীত দক্ষিনাঞ্চলের জন্য অনেক করেছেন। কিন্তু সব ম্লান হয়ে যাচ্ছে আপনার দলের নাম ব্যবহার কওে দস্যুতা করা কতিপয় সন্ত্রাসীর কারনে। উন্নয়ন প্রকল্পে কালিমা পড়ছে। এসব উন্নয়ন প্রকল্প মানুষের অভিশাপ নিয়ে এগিয়ে চলছে। আপনি সহায় হোন। আমাদের রক্ষা করুন।

লিখিত বক্তব্যে তিনি আরো উল্লেখ করেন, ঢাকা ৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিমের মালিকানাধীন মদিনা গ্রুপের মদিনা ফিলিং স্টেশন নির্মানের জন্য আমাদের ১৯৮৫ সাল থেকে অদ্যবদী ভোগ দখলীয় পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার টিয়াখালী ইউনিয়নের রজপাড়া মৌজার উক্ত জমি দখল করে গত ১৮ জুলাই মাটি কাটার মেশিন দিয়ে জমির মাটি কেটে রিংভেড়িবাঁধ নির্মান করছেন বালু ভরাটের জন্য।

জমি দখল করে মাটি কাটার বিষয় ২৩ জুলাই মঙ্গলবার মদিনা গ্রুপের কলাপাড়া কার্যালয়ে উপস্থিত প্রতিষ্ঠানটির ডিজিএম (ভূমি) মো. নুরুল হামিদ এর কাছে কারন জানতে চাইলে তিনি জবাবে জানায়, টিয়াখালী ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান সৈয়দ মশিউর রহমান শিমু তার প্রতিনিধির মাধ্যমে জমির দাতাদের মাধ্যমে এসব জমি আমাদের ক্রয়করা জমির দলিল অনুসারে মেপে দিয়েছেন।

উক্ত জমির প্রকৃত মালিক আমরা বলার সঙ্গে সঙ্গে তিনি ২০১৭ সালে রেজিস্ট্রি হওয়া আমাদের উক্ত জমির দলিল উপস্থাপ করেন। প্রকৃত পক্ষে ওই জমি আমরা ১৯৭৯, ১৯৮৫ এবং ১৯৮৬ সালে প্রকৃতি মালিকদের কাছ থেকে ক্রয় করে ভোগদখলে আছি। এখন সেই জমিই ৭০ দশকের সময়ের তথা আগের মালিকের ওয়ারিশদের কাছ থেকে ২০১৭ সালে রেজিস্ট্রিকরা দলিল দেখিয়ে জবর দখল করা হচ্ছে।

সংবাদ সম্মলনে উপস্থিত জমির মালিক ইউনুফ মিনা ও আনোয়ার মিনা বলেন, বর্তমান সরকার কলাপাড়াসহ দক্ষিণাঞ্চলের উন্নয়নের জন্য কাজ করলেও স্থানীয় প্রভাবশালীদের মাধ্যমে আমাদের জমি জোড়পূর্বক দখল করা হচ্ছে। দখল কার্যক্রম বন্ধে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করছি।

টিয়াখালী ইউপি চেয়ারম্যান সৈয়দ মশিউর রহমান শিমু জানান, আমি জনগনে নির্বাচনে নির্বাচিত প্রতিনিধি। আমার দ্বারা জনগনের ক্ষতিসাধন হবে এমন মানষিকতা আমার নেই। মদিনা গ্রুপ যে জমি ক্রয় করেছে, সেই জমির দলিল দেখে তাদের জমি তারা বুঝে নিয়েছে। এখন যদি ওই প্রকল্প এলাকায় নতুন করে যারা জমির মালিকানা দাবি করে, তবে তাদের বৈধ কাগজপত্র আমাদের কাছে উপস্থাপন করুক; আমরা যাচাই বাছাই করে দেখে ইউনিয়ন চেয়ারম্যান হিসেবে এ বিষয়ে যথাযথ ফয়সালা করার ব্যবস্থা গ্রহন করবো।

এ ব্যাপারে মদিনা গ্রুপের ডিজিএম (ভূমি) নূরুল হামিদ জানান, ২০১৭ সালের ১১ মে মাসে খেপুপাড়া সাব রেজিস্ট্রি অফিসের মাধ্যমে ছয়টি কবলা দলির দ্বারা প্রায় পাঁচ একর জমি ওয়ারিশ প্রাপ্ত জমির মালিকদের কাছ থেকে কোম্পানীর ‘মদিনা ফিলিং স্টেশন’ নামে ক্রয় করা হয়েছে। জমির মালিকরা দুই বছর আগে আমাদের জমি বুঝিয়ে দেওয়ার পর মঙ্গলবার ক্রয়কৃতি জমিতে খনন কাজ শুরু করা হয়।

এরপর জমির মালিকানা দাবিকরা সৈয়দ আহসান উদ্দিন পাভেলসহ অন্যান্যদের গত মঙ্গলবার কলাপাড়া অফিসে ডেকে আনা হয় বিস্তারিত জানার জন্য। তারা জমির মৃত্যুবরন করা মালিকদের কাছ থেকে জমি ক্রয় করে জমি জমাখারিজ করেনি এবং সরকারী খাজনাও পরিশোধ করেননি। তারপরও আমরা তাদের কাছ থেকে তাদের দলিলের কপি রেখেছি এবং বলেছি, আপনাদের দলিল এবং কাগজ পত্র যাচাই বাছাই করে আপনাদের কাছ থেকেও প্রয়োজনে প্রকৃত টাকা দিয়ে মদিনা কোম্পানীর মদিনা ফিলিং স্টেশন এর পক্ষে জমির দলিল গ্রহন করবে।

তাদের সঙ্গে এধরনের সমঝোতার এক দিন না যেতেই তারা কেন, কী উদ্দেশ্যে সাংবাদিক সম্মেলন করে কোম্পানী বা ঢাকা ৭ আসনের সংসদ সদস্য হাজী মো. সেলিমের সন্মান ক্ষুন্ন করছেন তার কোন উত্তর খুজে পাচ্ছি না। এমনকি প্রয়োজনে এ বিষয়টি নিয়ে স্থানীয় এমপি অধ্যক্ষ মো. মহিব্বুর রহমান মুহিব এর সঙ্গে যোগাযোগ করে সুষ্ঠু সমাধানের ব্যবস্থা করবেন কোম্পানীর চেয়ারম্যান।



সম্পাদনা: বরি/প্রেস/মপ


প্রকাশক: মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন তালুকদার    সম্পাদক: মো: জিয়াউল হক
সাঁজের মায়া (২য় তলা), হযরত কালুশাহ সড়ক, বরিশাল-৮২০০। ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, মুঠেফোন : ০১৮২৮১৫২০৮০ ই-মেইল : [email protected]
আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।