Current Bangladesh Time
বৃহস্পতিবার আগস্ট ১৩, ২০২০ ২:১২ পূর্বাহ্ন
Barisal News
Latest News
প্রচ্ছদ » নাজিরপুর, নেছারাবাদ (স্বরূপকাঠি), পিরোজপুর, পিরোজপুর সদর, মঠবাড়িয়া, সংবাদ শিরোনাম » পিরোজপুরঃ মতানৈক্যের কারণে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আওতায় বরাদ্দের টাকা ফেরত গেলো
৭ জুলাই ২০২০ মঙ্গলবার ৫:০৮:১৭ অপরাহ্ন
Print this E-mail this

পিরোজপুরঃ মতানৈক্যের কারণে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আওতায় বরাদ্দের টাকা ফেরত গেলো


এম,এইচ,চুন্নু।বিশেষ প্রতিবেদকঃ

পিরোজপুরের মতানৈক্যের কারণে উন্নয়নের কাজে বরাদ্দকৃত কোটি টাকার বেশি ফেরত গেছে। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচির (এডিপি) আওতায় বরাদ্দ হওয়া এ টাকা স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের (এলজিইডি) মাধ্যমে উন্নয়ন কাজে খরচ হওয়ার কথা থাকলেও তা ফেরত গেছে।

জানা গেছে, জেলার মঠবাড়িয়ায় প্রায় সাড়ে ৬০ লাখ, নাজিরপুরে সাড়ে ২৩ লাখ, ইন্দুরকানীতে ১৭ লাখ ও নেছারাবাদের ৪ লাখ ৩৩ হাজার টাকা ফেরত যায়। গত ৩০ জুন ওই টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত গেছে। ফলে কাজ শেষ হলেও টাকা পাননি ঠিকাদাররা। 

অভিযোগে জানা গেছে, মঠবাড়িয়ায় স্থানীয় (পিরোজপুর-৩) সংসদ সদস্য ও উপজেলা চেয়ারম্যানের সঙ্গে মতানৈক্যের কারণে সেখানে উন্নয়নের প্রায় সাড়ে ৬০ লাখ টাকা সরকারি কোষাগারে ফেরত যায়। ওই টাকায় এডিপির আওতায় টেন্ডার হলেও নির্ধারিত সময়ের মধ্যে কাজ শেষ করাতো দূরের কথা, নিজেদের মতানৈক্যের কারণে কাজই শুরু করতে পারেনি সংশ্লিষ্ট ঠিকাদাররা। ওই টেন্ডার বাতিলের পক্ষে-বিপক্ষে স্থানীয় উপজেলা চেয়ারম্যানসহ অন্যান্য ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চেয়ারম্যান, সংশ্লিষ্ট ঠিকাদাররা সেখানে কয়েক দফায় সংবাদ সম্মেলন ও মানববন্ধন করেছেন। পরে কার্যাদেশ বাতিল হয়ে বরাদ্দের টাকা ফেরত গেলে স্থানীয় এমপিকে ওই কার্যাদেশ বাতিলের হোতা অভিযোগ করে তার বিপক্ষে ঝাড়ু মিছিল ও সংবাদ সম্মেলন করেন উপজেলা চেয়ারম্যানসহ ইউপি চেয়ারম্যানরা। আর পরের দিন এর প্রতিবাদে সাধারণ ঠিকাদাররা আবার উপজেলা চেয়ারম্যানসহ অন্যদের বিরুদ্ধে পাল্টা সংবাদ সম্মেলন করেন। এসব সংবাদ সম্মেলনে পাশাপাশি অভিযুক্ত করা হয় উপজেলা প্রকৌশলীকেও।

টাকা ফেরত যাওয়ার ব্যাপারে মঠবাড়িয়া উপজেলা প্রকৌশলী কাজী আবু সাঈদ জসীম বলেন, স্থানীয় এমপি ও উপজেলা চেয়ারম্যানের মধ্যে সমন্বয়হীনতার কারণে এ টাকা ফেরত গেছে।

অভিযোগে জানা গেছে, নাজিরপুরের ফেরত যাওয়া প্রায় সাড়ে ২৩ লাখ টাকার মধ্যে ২২ লাখ টাকা   এলজিইডির অধীনে ও এক লাখ ৩৫ হাজার টাকা উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয়ের অধীনে। 

জানা গেছে, এলজিইডির অধীনে গত অর্থবছরের জন্য এডিবির বরাদ্দ হওয়া ২২ লাখ টাকা ফেরত  গেছে। ওই টাকায় বরাদ্দ হওয়া কাজ সমাপ্ত হলেও বরাদ্দকৃত টাকা উত্তোলন করতে পারেননি সংশ্লিষ্টরা। আর এ জন্য ঠিকাদাররা দায়ী করলেন নাজিরপুর উপজেলার চেয়ারম্যান মাস্টার অমূল্য রঞ্জ হালদারকে। 

তবে চেয়ারম্যান মাস্টার অমূল্য রঞ্জ হালদার তার বিরুদ্ধে আনিত অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, এলজিইডি যথা সময়ে ফাইল না পাঠিয়ে ৩০ জুন ফাইল পাঠিয়েছে। আর তখন আমি ওই ফাইলে স্বাক্ষর করলেও অনলাইনে বিল ছাড় করেনি। 

ওই বরাদ্দকৃত টাকায় কাজ সম্পন্ন করা ঠিকাদার ও নাজিরপুর উপজেলার ভাইস চেয়ারম্যান মো. মোস্তাফিজুর রহমান রঞ্জু  জানান, ‘আমি তিন লাখ টাকায় উপজেলা পরিষদের ডরমেটরি একটি ভবন সংস্কারের কাজ শেষ করি। কিন্তু উপজেলা চেয়ারম্যানের অফিসের গাফেলতির কারণে আমি ও অন্যরা টাকা উত্তোলন করতে পারিনি’। 

নাজিরপুর উপজেলা প্রকৌশলী মো. জাকির হোসেন মিয়া বলেন, ‘আমার অফিস থেকে ওই কাজের বিলের জন্য ফাইল নির্ধারিত সময় ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। তবে কী কারণে  ঠিকাদাররা বিল পাননি তা আমি জানি না’। 

উপজেলার ৯ নম্বর কলারদোয়ানিয়া ইউপি ও বিশেষ বরাদ্দ টেস্ট রিলিফের (টিআর) প্রকল্প চেয়ারম্যান মো. হাসানাত ডালিম অভিযোগ করে জানান, সেখানে গত অর্থ বছরে টিআরের আওতায় কাজ সম্পন্ন হয়। পরে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কার্যালয় ওই কাজের বিল পাস করে দিলেও উপজেলা হিসাবরক্ষণ কার্যালয় ও ব্যাংকের গাফেলতির কারণে কাজের লাখ ২৫ হাজার টাকা তিনি পাননি। সেই টাকা ফেরত গেছে।  

এ ব্যাপারে কথা বলতে উপজেলা হিসাবরক্ষণ কার্যালয়ে গেলে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তাকে পাওয়া যায়নি। তিনি ছুটিতে আছেন বলে ওই কার্যালয়ের এক কর্মচারী জানান। 

জেলার ইন্দুরাকানীতে এডিপির ১৭ লাখ টাকা ফেরত যায়। তবে ইন্দুরাকানী উপজেলা প্রকৌশলী লায়লা মিঠুন জানান, তাদের বরাদ্দ দেরিতে আসছে। আর ওই বরাদ্দের বিপরীতে টেন্ডার দেওয়া হলে তাতে কিছু ত্রুটি দেখা দেয়। পরে সময়ের সংক্ষিপ্ততার কারণে পুনরায় টেন্ডার দেওয়ার সময় পাননি।  

এছাড়া জেলার নেছারাবাদ (স্বরূপকাঠী) উপজেলায় এডিপির তহবিল থেকে বরাদ্দ হওয়া করোনা দুর্যোগে মোকাবিলায় দুস্থদের জন্য ত্রাণ বিতরণের চার লাখ ৩৩ হাজার টাকার ফেরত গেছে। আর এ জন্য নেছারাবাদ উপজেলা চেয়ারম্যান দায়ী করেলেন উপজেলা প্রকৌশলী মীর আলি সাকিরকে। 

এ ব্যাপারে প্রকৌশলী মীর আলি সাকির বলেন, ক্রয় কমিটি যথা সময়ে মালামাল ক্রয় করতে পারেনি। আর তাই বিল দেওয়া সম্ভব হয়নি। 

সম্পাদনা: আমাদের বরিশাল ডেস্ক

শেয়ার করতে ক্লিক করুন:

আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
(মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। amaderbarisal.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের মিল আছেই এমন হবার কোনো কারণ নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে amaderbarisal.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না।)
বরিশাল নগরে ডিবি পুলিশের ‘ব্লক রেইড’
যেকোন দুর্যোগে বাংলাদেশের পাশে থাকবে ভারত: রীভা গাঙ্গুলি
বেপরোয়া আন্তঃজেলা-দূরপাল্লার বাস! স্বাস্থ্যবিধি মানার নেই কোন সদিচ্ছা
সিলেটে আটক জঙ্গির বাসায় মিলল শক্তিশালী বোমা, আরেকটি বাসায় চলছে অভিযান
বিশ্বে প্রথম করোনার ভ্যাকসিন অনুমোদন দিল রাশিয়া
Recent: Mayor Hiron Barisal
Recent: Barisal B M College
Recent: Tender Terror
Kuakata News

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
আমাদের বরিশাল ২০০৬-২০২০

প্রকাশক ও নির্বাহী সম্পাদক: মোয়াজ্জেম হোসেন চুন্নু, সম্পাদক: রাহাত খান
৪৬১ আগরপুর রোড (নীচ তলা), বরিশাল-৮২০০।
ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, ই-মেইল: hello@amaderbarisal.com