AmaderBarisal.com Logo

আমতলী-তালতলী সড়কের বেহাল দশা সড়ক নয় যেন ডোবা – নালা


আমাদেরবরিশাল.কম

২৮ জুলাই ২০২০ মঙ্গলবার ৫:১১:৪৬ অপরাহ্ন

জাকির হোসেন,আমতলী (বরগুনা) প্রতিনিধিঃ

সংস্কারের অভাবে আমতলী-তালতলী সড়ক বেহাল দশায় পরিনত হয়েছে। মানিকঝুড়ি থেকে কচুপাত্রা সেতু পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার সড়কে অসংখ্য খানাখন্দে ভরে গেছে। সড়কে
খানা খন্দের কারনে ইট সুড়কি সরে মাটি বের হওয়ায় বৃষ্টির পানি জমে অনেক জায়গায় হাটু পরিমান কাঁদার সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির সময় সড়কের খানা খন্দে পানি জমা অবস্থায় আকস্মিক কেই দেখলে মনে হবে এটা সড়ক নয় যেন ডোবা নালা। সড়কের এরকম বেহাল দশার কারনে যানবাহন চলাচলতো দুরের কথা মানুষের পায়ে হেটেও চলাচল দায় হয়ে পরেছে।

তালতলী উপজেলা থেকে ঢাকা বরিশাল কিংবা দেশের অন্য যে কোন স্থানের সাথে সড়ক যোগাযোগের এটিই একমাত্র সড়ক তালতলী উপজেলা বাসীর। সড়কটি দ্রুত সংস্কারের
দাবী জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা।

জানাগেছে, আমতলী-তালতলীর ফকিরহাট পর্যন্ত ৩৫ কিলোমিটার আঞ্চলিক সড়ক। ২০১২ সালে আমতলী-তালতলী সড়কটি সর্বশেষ সংস্কার করা হয়। এই সড়ক দিয়ে প্রতিদিন আমতলী-তালতলীর অন্তত অর্ধলক্ষ মানুষ আমতলী তঅলথলীসহ দেশের যে কোন স্থানে যাতায়াত করে। ঢাকা বরিশালের সাথে তালতলী বাসীর যোগাযোগের একমাত্র সড়ক এটি। দীর্ঘ দিন ধরে সড়কটি সংস্কার না করায় এই সড়কের মানিকঝুড়ি থেকে কচুপাত্রা সেতু পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার সড়কে হাজার হাজার খানাখন্দের সৃষ্টি হয়েছে। খানাখন্দের কারনে সড়ক দিয়ে যানবাহন চলাচলতো দুরের কথা মানুষের পায়ে হেটেও চলাচলের অনুপোযোগী হয়ে পরেছে। বর্তমানে পথচারীরা জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এইসড়ক দিয়ে চলাচল করছে। এই সড়ক সংস্কার করা না হলে ঘটে যেতে পারে বড় ধরনের দূর্ঘটনা এমনটাই আশঙ্কা করেছেন এলাকাবাসী ও সড়কে চলাচলকারী বাস ও যান্ত্রিক যান ত্রি-হুইলার চালকরা।

স্থানীয়রা অভিযোগ করেন ঠিকাদার সড়ক সংস্কারে নিম্ন মানের সামগ্রী ব্যবহার করায় সড়কের এ বেহাল দশা। সরেজমিনে ঘুরে দেখাগেছে, সড়কের মানিকঝুড়ি থেকে কচুপাত্রা সেতু পর্যন্ত ৮ কিলোমিটার সড়ক বেহাল। ওই সড়কের প্রতি ২০-৩০ গজ দুরত্বে রয়েছে হাজার হাজার ছোট খাটো ডোবা নালার মত অবস্থা। সড়কে খানাখন্দে ভরে যাওয়ায় ইট পাথরের খোয়া বেড়িয়ে গেছে। অনেক জায়গায় ইট সুরকি সড়ে যাওয়ায় মাটি বের হয়ে যাওয়ায় বৃষ্টির পানি জমে হাটু পরিমান কাঁদায় পরিনত হয়েছে সড়ক। এই সড়ক দিয়ে বর্তমানে বাস ও মাহেন্দ্রা চলাতেও ভয় পায় চালকরা। সড়কের এমন দশার কারনে প্রতিদিন ঘটছে অসংখ্য দুর্ঘটনা।

এই সড়কের আরপাঙ্গাশিয়া নামক স্থানে রয়েছে একটি বাজার। বাজারের এই সড়কের
অবস্থা খুবই খারাপ। সড়কের দুই ধারে রয়েছে শতাধিক দোকান। সড়কের এই স্থানের
অধিকাংশ জায়গার কার্পেটিং সড়ে ইট খোয়া সড়ে মাটি বেড় হওয়ায় প্রচন্ড কাঁদার সৃষ্টি হয়েছে। কাঁদার কারনে বৃষ্টির সময় পানি জমার কারনে হাটের দিন কোন ক্রেতা বিক্রেতারা বসতে পারে না। সড়কে পানি জমার কারনে সড়কের পাশের দোকানিরাও ঠিকমত তাদের ব্যবসা চালাতে পারে না। বাজারের ব্যবসায়ী জাকির হোসেন জানান, সড়কের খোয়া সুড়কি সড়ে বড় বড় খাদের সৃষ্টি হয়েছে। বৃষ্টির সময় দুর থেকে দেখলে মনে হয় সড়কে যেন ডোবা নালার সৃষ্টি হয়েছে। তিনি আরো বলেন, এই স্থান দিয়ে বাস
কিংবা অন্য যান বাহন চলাচলের সময় গর্তে জমে থাকা পানি এবং কাঁদা ছিটে দোকানের মালামাল নষ্ট হয়ে যায়। তাই সবসময় আমাদের আতঙ্কের মধ্যে দোকানে বসতে হয়।

আড়পাঙ্গাশিয়া ইউনিয়নের আওয়ামীলীগ নেতা জাফর বিশ্বাস বলেন, এটা সড়ক নয় যেন খাল। সড়ক দিয়ে গাড়ী ও মানুষ চলাচলে খুবই দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে।দ্রুত সড়ক
মেরামতের দাবী জানাই।

বাসের চালক মো. শানু হাওলাদার জানান, জীবনের ঝুঁকি নিয়ে এ সড়ক দিয়ে বাস
চালাতে হয়। দ্রুত সড়কটি সংস্কারের দাবী জানাই।

আমতলী উপজেলা প্রকৌশলী মো. মনোরায়ারুল ইসলাম বলেন, আমি নতুন আমতলীতে
যোগদান করেছি। খোজ খবর নিয়ে সড়ক সংস্কারের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



সম্পাদনা: আমাদের বরিশাল ডেস্ক


প্রকাশক: মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন তালুকদার    সম্পাদক: মো: জিয়াউল হক
সাঁজের মায়া (২য় তলা), হযরত কালুশাহ সড়ক, বরিশাল-৮২০০। ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, মুঠেফোন : ০১৮২৮১৫২০৮০ ই-মেইল : hello@amaderbarisal.com
আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।