Current Bangladesh Time
বৃহস্পতিবার জানুয়ারী ১৯, ২০১৭ ৪:০৮ পূর্বাহ্ন
Barisal News
Latest News
প্রচ্ছদ » পর্যটন, ভোলা » বুনো সৈকত আজও হরিণের অভয়ারণ্য
১৪ মার্চ ২০১৫ শনিবার ১২:৪৬:০৭ অপরাহ্ন
Print this E-mail this

চর কুকরী মুকরী

বুনো সৈকত আজও হরিণের অভয়ারণ্য
অচিন্ত্য মজুমদার, ভোলা থেকে


char-kukri-mukri-deer-horin চর কুকরী মুকরী ভোলা পর্যটন বরিশাল কুকরি মুকরি

বাংলাদেশের শেষ প্রকৃত গ্রামগুলোর একটি ভোলার চর কুকরী মুকরী। যেখানে নেই শহরের কোলাহল, নেই বিদ্যুত বাতি, নেই রিকশাও, শুধু আছে মানুষের ভালোবাসা আর প্রাকৃতিক নিসর্গ। ভোলা জেলার মূল ভূ-খণ্ড থেকে প্রায় দেড়শ’ কিলোমিটার দক্ষিণে এর অবস্থান। বঙ্গপোসাগরের কোল ঘেঁষে জেগে ওঠা চরটি স্থানীয়দের কাছে ‘দ্বীপকন্যা’ নামে পরিচিত। এখানকার ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল, বন্যপ্রাণী আর সমুদ্র সৈকতকে ঘিরে সৌন্দর্যের এক বর্ণিল উপস্থিতি প্রকৃতিপ্রেমী আর পর্যটকদের হাতছানি দিয়ে ডাকে। ফলে এক সময়কার ওলন্দাজ-পর্তুগীজদের অভয়ারন্য বলে পরিচিত চর কুকরী মুকরী এখন দেশী-বিদেশী পর্যটক আর ভ্রমন বিলাসীদের মিলন মেলায় পরিণত হয়েছে।

char-kukri-mukri-mohish-cow চর কুকরী মুকরী ভোলা পর্যটন বরিশাল কুকরি মুকরি

চর কুকরী মুকরীতে বুনো মহিষের পাল

প্রায় চারশ’ থেকে পাঁচশ’ বছর আগে পলির স্তর জমতে জমতে বঙ্গোপসাগরের উপকূলে চর কুকরী-মুকরী নামের এ দ্বীপটি জেগে উঠে। কালের স্বাক্ষী পুরোনো এ চরে আজও লাগেনি সভ্যতার ছোঁয়া। বঙ্গোপসাগরের কোল ঘেঁষে মেঘনা-তেতুলিয়ার মোহনায় প্রাকৃতিকভাবে গড়ে উঠা বিশাল বনাঞ্চল বেষ্টিত এ দ্বীপে বিচরণ করছে অসংখ্য হরিণ, অতিথি পাখি, লাল কাঁকড়া, বুনো মহিষ, বানর, বনবিড়াল, উদবিড়াল, শেয়াল, বনমোড়গসহ নানা প্রজাতির বন্যপ্রাণী।

এখানে নিরাপদ নৌ-যোগাযোগ ব্যবস্থা, হোটেল-মোটেলসহ আধুনিক পর্যটন ব্যবস্থা গড়ে তুলতে পারলে তা কুয়াকাটা, কক্সবাজার, সেন্টমার্টিনের চেয়েও নৈসর্গিক সৌন্দর্যের লীলাভূমিতে পরিনত হতে পারে। বিস্তৃত সবুজ বনাঞ্চল, মায়াবি হরিণের পাল আর মন ভুলানো সমুদ্র সৈকত কুকরীমুকরীকে পরিণত করতে পারে ভ্রমণ বিলাসীদের তীর্থ ভূমিতে।

char-kukri-mukri-kakra-scorpion চর কুকরী মুকরী ভোলা পর্যটন বরিশাল কুকরি মুকরি

চর কুকরী মুকরীর সৈকতে লাল কাঁকড়া

শীত মৌসুমে ঝাঁকে ঝাঁকে অতিথি পাখির উপস্থিতি এ পর্যটন কেন্দ্রকে করে তুলে আরো মনোরম। ইতিমধ্যে আইইউসিএন (IUCN) চরকুকরী মুকরীকে বিশ্ব জীব বৈচিত্রের স্থান হিসেবে চিহ্নিত করেছে।

বর্তমানে কুকরী-মুকরী ইউনিয়নটি বাবুগঞ্জ, নবীনগর, রসূলপুর, আমিনপুর,শাহবাজপুর, মুসলিম পাড়া, চর পাতিলা ও শরীফ পাড়া নিয়ে গঠিত। বাণিজ্যিকভাবে পর্যটনের প্রয়োজনীয় কোন ব্যবস্থা না থাকলেও চর কুকরী-মুকরীর বনের হরিন আর বালির সৈকতের ব্যাকুলময় টানেই দর্শনার্থীরা কষ্টসাধ্য হলেও ছুটে আসেন এখানে। নতুন বছরকে বরণ করতে এখানে প্রতিবছর পালিত হয় সূর্যোৎসব।

char-kukri-mukri-bird-bhola-tourism-bangladesh চর কুকরী মুকরী ভোলা পর্যটন বরিশাল কুকরি মুকরি

চর কুকরী মুকরীতে পরিযায়ী পাখির ঝাঁক

এখানকার ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চলের প্রায় ২০কিঃমিঃ এলাকা যেন আরেক সুন্দরবন। বালি চিক চিক সমুদ্র সৈকতে হেটে বেড়ানোর মজা পেতে হলে যেতে হবে কুকরীমুকরীর বালু চরে। চরের পশ্চিম পার্শ্বে রয়েছে ১ হাজার ৬৯৬ একর বাগান। এ বাগানকে বলা হয় চরজমির। কিন্তু চরজমিরের পশ্চিম এবং কলিরচরের পূর্ব ও দক্ষিণ দিকে উন্মুক্ত সাগর সৈকতে আসতে হবে নৌ-যানে করে।

এছাড়াও চরফ্যাশন উপজেলার ৪৮টি মুজিব কেল্লার মধ্যে একটি কুকরী বাগানে। কেল্লাটি বর্তমানে বনবিভাগের ক্যাম্প হিসেবে ব্যবহার করা হচ্ছে। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব সরকারের আমলে ব্যার সময় লোকজনকে আশ্রয় নেয়ার জন্য সরকার এ কেল্লা তৈরি করেন। যুগের পরিবর্তনে বিভিন্ন উন্নয়ন সংস্থা কর্তৃক পাকা আশ্রয় কেন্দ্র নির্মাণের কারণে এ কেল্লাগুলোর গুরুত্ব অনেকাংশে হ্রাস পায়। তবে মূল ভূ-খণ্ডের কেল্লার গুরুত্ব বা যত্ন না থাকলেও কুকরীমুকরী দ্বীপের চারটি কেল্লার এখনো গুরুত্ব রয়েছে। কারণ এখানে কোন বেরিবাঁধ নেই। আশ্রয় কেন্দ্রের সংখ্যাও অপ্রতুল। বন্যা ও জলোচ্ছাস উপকূলীয় মানুষের নিত্য দিনের সাথী। তবুও বাগানের ক্যাম্প হিসেবে ব্যবহৃত মুজিব কেল্লার গুরুত্ব রয়েই গেছে। এ কেল্লাটি হতে পারে কুকরী দ্বীপের পর্যটনের প্রাণপ্রন্দ্র।

char-kukri-mukri-mangrove-forest চর কুকরী মুকরী ভোলা পর্যটন বরিশাল কুকরি মুকরি

কুকরী মুকরীর ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চলে শ্বাসমূল

কারণ, এ বনে রয়েছে হরিণ, বানরসহ বিভিন্ন প্রজাতির বন্যপ্রাণী। জোয়ারের সময় বাগান প্লাবিত হলে দলবেধে হরিণগুলো আশ্রয় নেয় এ কেল্লায়। আবার সমগ্র বনে একটি মাত্র মিঠা পানির কূপ রয়েছে কেল্লার ভিতরে। হরিণ লবনাক্ত পানি পান করে না। বিধায় তৃষ্ণা পেলে হরিণের পাল ছুটে এসে কিল্লার কূপে। তাই প্রতিনিয়তই শত শত হরিণের পদচারণায় মুখরিত থাকে এ মুজিব কেল্লা। যার কারণে, ভ্রমণ পিপাশুরা হরিণ দেখার ইচ্ছায় প্রতিদিনই মুজিব কেল্লায় ভীড় জমায়। কেল্লাটি ৩০০ একর জমিতে প্রতিষ্ঠিত। যার চারদিকে কেওড়া বাগান। বাগানের প্রবেশ দ্বার দিয়ে বয়েগেছে সরু খাল। খালের অল্প কিছুদুর এগুতেই সাগর মোহনা। কেল্লা হতে সাগর সৈকতের দূরত্ব পাঁচ কিলোমিটার। কুকরীমুকরী বাজার থেকে কেল্লার দূরত্ব সারে চার কিলোমিটার। কিন্তু এর মাঝে যোগাযোগের কোন সড়ক নেই। কর্দমাক্ত মাঠ অতিক্রম করে কেল্লায় পৌঁছতে হয়। বিকল্প হলো নৌ-পথ।

char-kukri-mukri-river-side-beauty চর কুকরী মুকরী ভোলা পর্যটন বরিশাল কুকরি মুকরিবনবিভাগ সূত্রে জানা যায়, বনবিভাগ কুকরী মুকরীতে একটি বন গবেষণা কেন্দ্র প্রতিষ্ঠা করেছে। এখানে ২০১৭ হেক্টর বনাঞ্চল রয়েছে। এখানকার প্রধান বৃক্ষ কেওরা, অর্থনৈতিক বিচারে যা ততটা সমৃদ্ধ নয়। দ্বীপের ভূ-প্রকৃতি সুন্দরী, গেওয়া, পশুর বৃক্ষের জন্য উপযোগী। তাই এখানে কেওড়ার পাশাপাশি এ সকল বৃক্ষ সৃজনের কাজ শুরু হয়েছে। ইতোমধ্যে ১০ একর জমিতে সুন্দরীর চারা সৃজন করা হয়েছে। উৎপাদন করা হয়েছে ৫০ হাজার চারা। ১৯৯৮ সাল থেকে এ দ্বীপে গবেষণার কাজ শুরু হয়। কুকরীমুকরীতে বর্তমানে ১৭টিরও বেশি বন আছে। এর মধ্যে ১৭৬৮ একর জমিতে সৃজিত আছে কুকরী মুকরীর বাগান।

সরেজমিনে চর কুকরী-মুকরী গেলে কথা হয় স্থানীয় জেলে বেলাল মাঝি, মান্নান ও কাজল মাঝি সাথে। তারা জানান, শীত এলে বিভিন্ন স্থান থেকে মানুষ কুকুরীতে ঘুরতে আসে। আর কুকুরীতে আসা পর্যটকদের নিয়ে নদী বক্ষে মাঝিরা নৌকায় পাল তুলে ছুটে বেড়ায়। তাই এসময় মাছের সিজন না থাকলেও অন্য এলাকার মত অলস সময় কাটাতে হয়না এখানকার মাঝিদের।

char-kukri-mukri-bhola-fisherman চর কুকরী মুকরী ভোলা পর্যটন বরিশাল কুকরি মুকরিচর কুকরী-মুকরী ইউনিয়নের চর পাতিলা গ্রামের শরিফ পাড়া প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা সালমা বেগম আমাদের বরিশাল ডটকম’কে জানান, চর পাতিলার বনে দিন ভর অসংখ্য হরিন ছুটে বেড়ায়। কিন্তু চর পাতিলার বণে উচু স্থান না থাকায় জোয়ার এলে হরিন গুলোর বিপাকে পরতে হয়। এসময় কিছু হরিন পানিতে ভেসে থাকে আবার কিছু হরিন জোয়ারে ভেসে যায়। তাই হরিনের অবাধ বিচরন ও বনের জিব বৈচিত্র ধরে রাখতে চর পাতিলায় একটি মাটিল উচু কিল্লার প্রয়োজন বলে তিনি জানান।

চর কুকরী-মুকরী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক সুষেন দত্ত জানান, শীত মৌসুমে চর কুকরী-মুকরীর সুন্দর্য উপভোগ করতে মাছ ধরার ট্রলারে করে বহু মানুষ ছুটে আসেন। তখন কুকরীতে উৎসব মূখর পরিবেশ বিরাজ করে। কিন্তু উত্তাল নদী ও নিরাপদ যোগাযোগ ব্যবস্থা না থাকায় বর্ষা মৌসুমে এখানে মানুষ আসতে ভয় পায়। তাই শুধু পর্যটন এলাকা হিসেবে কুকরীকে গড়েতুলেই হবে না। সাথে সাথে নিরাপদ যোগা যোগ ব্যবস্থা দরকার বলে তিনি জানান।

char-kukri-mukri-iside-mangrove-forest চর কুকরী মুকরী ভোলা পর্যটন বরিশাল কুকরি মুকরিচর কুকরী-মুকরী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাসেম মহাজন জানান, চর কুকরী-মুকরীকে পর্যটন এলাকা হিসেবে গড়ে তুলতে সরকার ইতি মধ্যে বেশ কিছু প্রকল্প হাতে নিয়েছে। এর মধ্য বন বিভাগের ১০ কোটি টাকার ব্যায়ে একটি বহুতলবিশিষ্ট মোটেল তৈরীর প্রকল্প রয়েছে। কুকরীতে আসা পর্যটকদের জন্য সেখানে ৩০টি শিতাতপ নিয়ন্ত্রী কক্ষসহ থাকবে সুইমিংপুল ও খেলার মাঠ। আগামী মাস থেকে এর কাজ শুরু হবে বলে জানন তিনি।

স্থানীয় সাংসদ আব্দুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব আমাদের বরিশাল ডটকম’কে জানান, সরকার এ দ্বীপটিকে দেশের অন্যতম পর্যটন কেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার জন্য ৫০ কোটি টাকার বিভিন্ন প্রকল্প হাতে নিয়েছেন। প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হলে কুকরী হবে বাংলাদেশ পর্যটন শিল্পের একমাত্র মনমুগ্ধকর কেন্দ্রস্থল। ইতিমধ্যেই কুকরীর বনের মধ্যভাগ দিয়ে রাস্তা তৈরীর কার্যক্রম শুরু করা হয়েছে বলেও জানান তিনি।

ভিডিও দেখতে নিচে ক্লিক করুন:
চর কুকরী মুকরী – ভিডিও ১

চর কুকরী মুকরী – ভিডিও ২

সম্পাদনা: বরিশাল ডেস্ক

শেয়ার করতে ক্লিক করুন:

আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
(মন্তব্যে প্রকাশিত মত মন্তব্যকারীর একান্তই নিজস্ব। amaderbarisal.com-এর সম্পাদকীয় অবস্থানের সঙ্গে এসব অভিমতের মিল আছেই এমন হবার কোনো কারণ নেই। মন্তব্যকারীর বক্তব্যের বিষয়বস্তু বা এর যথার্থতা নিয়ে amaderbarisal.com কর্তৃপক্ষ আইনগত বা অন্য কোনো ধরনের কোনো দায় নেবে না।)
বরিশাল জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগ
সাইকেলে ৩৮০ কিলোমিটার পাড়ি দিয়ে কুয়াকাটা সৈকতে
বরিশাল অঞ্চলে বয়ে যাচ্ছে মৃদু শৈত্যপ্রবাহ
সাগর কন্যা কুযাকাটা সৈকতের আকর্ষণ লাল কাঁকড়া
খেজুর গাছে রস আছে, গাছি নেই
রাজধানীতে সাড়ে তিন কোটি টাকার বিএমডব্লিউ গাড়ি জব্দ
Recent: Mayor Hiron Barisal
Recent: Barisal B M College
Recent: Tender Terror
Kuakata News

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত
আমাদের বরিশাল ২০০৬-২০১৪

প্রকাশক: মোয়াজ্জেম হোসেন চুন্নু, সম্পাদক: রাহাত খান
ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: মোঃ জিয়াউল হক
৪৬১ আগরপুর রোড (নীচ তলা), বরিশাল-৮২০০।
ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, ই-মেইল: [email protected]