AmaderBarisal.com Logo

যাত্রী দূর্ভোগ চড়মে

ভোলা লঞ্চঘাট থেকে পন্টুন বিচ্ছিন্ন

ভোলা প্রতিনিধি
আমাদেরবরিশাল.কম

২৬ জুলাই ২০১৫ রবিবার ৯:১৫:৩৮ অপরাহ্ন

ভোলা-দৌলতখানের-লঞ্চঘাটমেঘনা নদীর পানির প্রবল স্রোতের তোড়ে ভোলার দৌলতখানের বীরশ্রেষ্ঠ মোস্তফা কামাল লঞ্চ টার্মিনালের জেটি থেকে পন্টুন বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে।

রবিবার দুপুরের এ ঘটনায় বিভিন্ন স্থান থেকে আগত যাত্রীদের লঞ্চ পারাপার করতে চড়ম দূর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এই দুর্ভোগে মাথায় নিয়ে কর্মস্থলে আসা-যাওয়া করছে হাজার হাজার যাত্রী। সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষে পক্ষ থেকে এখন পর্যন্ত টার্মিনাল মেরামতের কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি বলে জানা গেছে।

স্থানীয়দের সূতে জানাগেছে, রবিবার সকাল থেকেই বৈরি আবহাওয়ায় উত্তাল হয়ে উঠে ভোলার মেঘনা ও তেতুঁলিয়া নদী। নদীর জোয়ারের পানি স্বাভাবিকের চেয়ে তিন থেকে চার ফুট উচ্চতায় প্রবাহিত হচ্ছিল। এ সময় জোয়ারের প্রবল স্রোতে লঞ্চঘাট টার্মিনাল থেকে পন্টুন বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। খবর পেয়ে দৌলতখান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মুস্তাফিজুর রহমান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মুস্তাফিজুর রহমান বলেন, টার্মিনালটি দ্রুত নির্মাণের জন্য বিআইডব্লিউটিসি বরিশালের কর্মকর্তা, ভোলার জেলা প্রশাসক মোঃ সেলিম রেজা ও স্থানীয় এমপি আলী আজম মুকুলসহ সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে জানানো হয়েছে।

টার্মিনালের অবস্থা খুবই নাজুক এবং ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে উল্লেখ করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরো জানান, লঞ্চঘাট থেকে যাত্রীবাহী লঞ্চ সতর্কতার সঙ্গে যাতায়াতের ব্যবস্থা করা হচ্ছে।

এদিকে, দৌলতখান থেকে বিকেল তিনটা ও চার টায় দুটি লঞ্চ এবং পাঁচ টায় একটি লঞ্চ ঢাকার উদ্দেশে ছেড়ে যাওয়ার কথা রয়েছে। কিন্তু জেটি থেকে পন্টুন বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ায় লঞ্চে উঠতে পারছেন না যাত্রীরা। এ অবস্থায় বিকল্প ব্যবস্থায় কেউ কেউ লঞ্চে উঠছেন। এতে নারী ও শিশুরা চরম দুর্ভোগে পড়েছেন।



সম্পাদনা: জপ / বরিশাল ডেস্ক


প্রকাশক: মোঃ মোয়াজ্জেম হোসেন তালুকদার    সম্পাদক: মো: জিয়াউল হক
সাঁজের মায়া (২য় তলা), হযরত কালুশাহ সড়ক, বরিশাল-৮২০০। ফোন : ০৪৩১-৬৪৫৪৪, মুঠেফোন : ০১৮২৮১৫২০৮০ ই-মেইল : hello@amaderbarisal.com
আমাদের বরিশাল ডটকম -এ প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।